হিমাগারগুলোকে সাড়ে ১০ কোটি পাটের বস্তা দেবে বিজেএমসি

স্টার বাংলা ডেস্ক: হিমাগারগুলোকে (কোল্ড স্টোরেজ) ৪৪৫ কোটি টাকার ১০ কোটি ৬০ লাখ পাটের বস্তা সরবরাহ করবে বাংলাদেশ পাটকল করপোরেশন (বিজেএমসি)।

রোববার সচিবালয়ে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বিজেএমসি ও বাংলাদেশ কোল্ড স্টোরেজ অ্যাসোসিয়েশনের (বিসিএসএ) মধ্যে এ সংক্রান্ত একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

বিজেএমসির সচিব মুহাম্মদ সালেহউদ্দীন ও বিসিএসএ’র সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক চৌধুরী চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

অনুষ্ঠানে বিজেএমসির চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান বলেন, চুক্তির আওতায় বিজেএমসি ১০ কোটি ৬০ লাখ পাটের বস্তা সরবরাহ করবে। পাটের বস্তাগুলোর দাম পড়বে ৪৪৫ কোটি টাকা। দেশের অভ্যন্তরে তারাই (বিসিএসএ) সবচেয়ে বড় একক ক্রেতা। যেহেতু বিজেএমসি একটা সংকটকাল পার করছে, সেক্ষেত্রে এ চুক্তি সংকট উত্তরণে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে।

প্রতি পিস বস্তার দাম ৪২ টাকা ধরা হয়েছে জানিয়ে বিজেএমসির চেয়ারম্যান বলেন, প্রতিটি বস্তার ওজন হবে ৬০০ গ্রাম।

আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে হিমাগারগুলোতে ৫০ কেজি ওজনের এই ১০ কোটি ৬০ লাখ পাটের বস্তা সরববাহ করা হবে বলেও জানান মাহমুদুল হাসান।

বিসিএসএ’র সাধারণ সম্পাদক বলেন, বাংলাদেশে ৪১৬টি কোল্ড স্টোরেজ রয়েছে, যার ক্যাপাসিটি ৫৫ লাখ মেট্রিক টন। কোল্ড স্টোরেজের প্রভাবে দেশে প্রতি বছর আলুর উৎপাদন বাড়ছে। মূলত খাবার আলু, বীজ আলু, শিল্পে ব্যবহারে আলু, রফতানিযোগ্য আলু সংরক্ষণে আমরা এ বস্তা ব্যবহার করব।

বস্ত্র ও পাট সচিব ফয়জুর রহমান চৌধুরী বলেন, বিজেএমসি এখন যে অবস্থায় আছে অতীতে সেই অবস্থায় ছিল না। এটি বর্তমানে একটা লোকসানি প্রতিষ্ঠান হিসেবে চিহ্নিত। বিজেএমসির কার্যক্রম জোরদার ও লোকসান কাটিয়ে ওঠার জন্য আমরা বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করেছি। এর মধ্যে আজকের চুক্তিটি সেই পদক্ষেপের একটা অংশ।

তিনি বলেন, এ মন্ত্রণালয় পরিদর্শনের সময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর যে সব নির্দেশনা ছিল এর মধ্যে প্রথম নির্দেশনাটি হলো বিজেএমসিকে নিজের পায়ে দাঁড়াতে হবে। সেই নির্দেশনা সামনে রেখে আমরা কার্যক্রম পরিচালনা করছি। প্রকল্প গ্রহণ করছি, সেভাবেই এগিয়ে যাচ্ছি।

‘(এই চুক্তির মাধ্যমে) দেশের অভ্যন্তরে একটি বড় ধরনের সাপ্লাই বিজেএমসি নিশ্চিত করছে।’

‘বাংলাদেশ পাট পানীয় জার্মানির বাজারে বাজারজাত করতে সমর্থ হয়েছে’ উল্লেখ করে সচিব বলেন, আমরা চেষ্টা করছি পানীয়টা বহৎ আকারে ইউরোপ-আমেরিকার সব বাজারে বাজারজাত করতে। এশিয়ায় তো থাকবেই।

অনুষ্ঠানে কোল্ড স্টোরেজ অ্যাসোসিয়েশনের প্রথম সহ-সভাপতি কামরুল হোসেন চৌধুরী গোর্কি উপস্থিত ছিলেন।