৬ ইস্যুতে ট্রাম্পরে সঙ্গে আলোচনা

আন্তজাতিক ডেস্ক: যুক্তরাজ্যরে পর এবার যুক্তরাষ্ট্রে সফর করছনে সৌদি যুবরাজ মুহাম্মাদ বনি সালমান।র্পূবরে সর্ম্পককে আরও পাকাপোক্ত করতে যুক্তরাষ্ট্র সফরে যাচ্ছনে সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বনি-সালমান। সখোনে তনিি দুদশেরে অভ্যন্তরীণ ও আর্ন্তজাতকি সর্ম্পক নয়িে আলোচনা করবনে দশেটরি প্রসেডিন্টে ডোনাল্ড ট্রাম্পরে সঙ্গ।ে

ট্রাম্পরে সাথে বনি সালমানরে আলোচনার মূল বষিয়গুলো জানয়িছেে সংবাদমাধ্যম আরব নউিজ। আলোচনার প্রথমইে রয়ছেে ইরান ইস্যু।২০১৫ সালে ইরানরে করা পারমাণবকি চুক্তি শষে করার জন্য ট্রাম্পরে ওপর চাপ দবেনে সালমান।এর আগে জানুয়ারতিে র্সবশষে চুক্তটিি নবায়ন করে যুক্তরাষ্ট্র।

দ্বতিীয় তালকিায় রয়ছেে কাতার বয়কট। কাতারকে বয়কট করার বষিয়ে ট্রাম্পরে সঙ্গে আলোচনা করবনে সালমান। তবে কাতাররে সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্ররে সর্ম্পক র্পূবরে তুলনায় আরও অগ্রসর।

তৃতীয়ত রয়ছেে ফলিস্তিনি-ইসরায়লে শান্তি র্কমসূচ।ি চলতি মাসরে মে মাসইে ইসরায়লেরে রাজধানী তলে আববি থকেে জরেুজালমেে দূতাবাস স্থানান্তর করবে যুক্তরাষ্ট্র।ফলে জরেুজালমেকে ইসরায়লেরে রাজধানী হসিবেে স্বীকৃতি দওেয়া হবে দশেটরি পক্ষ থকে।ে র্মাকনিদিরে এমন সদ্ধিান্তরে বরিোধতিা সইে প্রথম থকেইে করে আসছে সৌদি আরব। ট্রাম্পরে সঙ্গে আলোচনার সময় এ বষিয়টি তুলে ধরবনে যুবরাজ সালমান।

চর্তুথ ইস্যু হচ্ছে সৌদি আরবরে বসোমরকি পরমাণু শক্তরি ব্যবহার।পারমাণবকি শক্তরি নরিাপদ ব্যবহার নয়িে সৌদি আরবকে সহায়তা করতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। নজিদেরে পারমাণবকি প্রযুক্তি দশেটরি কাছে বক্রিি করতওে আগ্রহী তারা। যুবরাজ সালমানরে সঙ্গে বষিয়টি নয়িে আলোচনা করবনে ট্রাম্প।

পঞ্চম ইস্যু হচ্ছে দুদশেরে মধ্যে বাণজ্যি। এমনতিইে সৌদি সরকাররে কাছে বপিুল পরমিাণ অস্ত্র বক্রিি করে থাকে যুক্তরাষ্ট্র। এছাড়া নজি দশেে প্রযুক্তি ক্ষত্রেে বাণজ্যিকি উদ্যোক্তার সংখ্যা বাড়াতে র্মাকনি প্রসেডিন্টেরে কাছে সহায়তা চাইবনে সালমান।

সর্ম্পক উন্নয়ন এমনতিইে সৌদ-িযুক্তরাষ্ট্র সর্ম্পক বশে ভালোই যাচ্ছ।ে সর্ম্পককে আরও উন্নত করতে নতুনভাবে আলোচনা করতে তো বাধা নইে। তাই এ নয়িে বঠৈকে বসবনে ট্রাম্প-সালমান। সূত্র : আরব নউিজ